চট্টগ্রামে ট্রাফিকের দোষের তালিকা মোটর সাইকেল, সিএনজি? মামলা ১৩১০ টি।

bg-4520180805224205.jpg

জাহাংগীর আলম( শুভ)ঃ- ৫ই আগষ্ট ররিবার চট্টগ্রামে ট্রাফিক সপ্তাহের প্রথম দিনে নগর ও জেলায় মামলা হয়েছে ১৩১০টি এবং আটক করা হয়েছে ১০৫টি যানবাহন। এর মধ্যে অধিকাংশ মোটর সাইকেল ও সিএনজি অটোরিকশা। বিগত অভিযানের মত এবার ও
যেন সেই চিএ ফুটে উঠেছে। শুধু কি যানযট নিরসন আর মোটর সাইকেল ও সিএনজি কি ট্রাফিক পুলিশের দোষের তালিকায় থাকে?
এমন প্রশ্ন নগরবাসীর। ট্রাফিক পুলিশ সপ্তাহের প্রথম দিনের চিএ সে দিকেই নির্দেশ করছে।

বাস,ট্রাক,কার,মাইক্রো এই সমস্ত ফিটনেস বিহীন গাড়ীর বিরুদ্ধে যেখানে জোড়ালো অভিযান পরিচালনা করার কথা,সেখানে এ ধরনের অভিযান করার চেয়ে না করাই ভাল বলে অভিমত সাবেক
পুলিশ কর্মকর্তা নুরুল এলাহির।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক এক ট্রাফিক পুলিশ কর্মকর্তা স্বীকার করেন
তাদের অসহায়ত্বের কথা। নগরীর অধিকাংশ প্রাইভেটকার সমাজের
এলিট পারর্সনের।তাদের গাড়ী আটক করা মানে নিত্যনতুন ফ্যাসাদে
জড়িয়ে পড়া।তাদের ঘাটিয়ে চাকুরী করাটা দায়।বদলীর খড়গের
চিন্তা থাকে বেশী।তার উপর উদ্বওন কতৃপক্ষের সাথে তাদের ঘনিষ্টতা
থাকায় টেলিফোন আসতে ৫মিনিট লাগেনা।ধমক আর হুমকিতো বোনাস। বাসের শ্রমিক সংগঠন এতোটাই বেপরোয়া,ধরা শুরু করলে
তারা সুযোগমত ধর্মঘট করে বসে।তাদের শান্ত করতে কত শত ট্রাফিক সাজেন্ট,টি,আই,পিআই কে ক্লোজড করা হয়েছে তা বলে
শেষ করা যাবেনা। আগে উদ্ধওনদের ঠিক করতে বলুন।

যানজট নিরসন এবং পরিবহন ব্যবস্থায় শৃঙ্খলা আনতে পুলিশের পক্ষ থেকে শনিবার দেশব্যাপী ট্রাফিক সপ্তাহ ঘোষণা করা হয়।

সিএমপি’র উত্তর ও বন্দর জোনে মোট মামলা দায়ের হয়েছে ১ হাজার ৪৭টি এবং আটক করা হয়েছে ৬৪টি যানবাহন। আটক যানবাহনের মধ্যে ৫২টি মোটরসাইকেল ও বাকিগুলো সিএনজি অটোরিকশাসহ অন্যান্য যানবাহন রয়েছে। ট্রাফিক বিভাগের উত্তর জোনে মামলা হয়েছে ৫৯৫টি, যানবাহন আটক হয়েছে ৩৫টি এবং বন্দর জোনে মামলা হয়েছে ৪৯২টি, যানবাহন আটক হয়েছে ২৯টি। এছাড়া দুই জোনে রোববার জরিমানা আদায় হয়েছে ২ লাখ ৯২ হাজার ৭০০ টাকা। এর মধ্যে উত্তর জোনে জরিমানা আদায় হয়েছে ১ লাখ ৪৫ হাজার ৪৫০ টাকা ও বন্দর জোনে জরিমানা আদায় হয়েছে ১ লাখ ৪৭ হাজার ২৫০ টাকা।

সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) কুসুম দেওয়ান বলেন, ট্রাফিক সপ্তাহের প্রথম দিন রোববার সিএমপির উত্তর ও বন্দর জোনে মোট মামলা দায়ের হয়েছে ১ হাজার ৪৭টি এবং আটক করা হয়েছে ৬৪টি যানবাহন। আটক হওয়া যানবাহনের মধ্যে ৫২টি মোটরসাইকেল ও বাকিগুলো সিএনজি অটোরিকশাসহ অন্যান্য যানবাহন রয়েছে।

জেলা পুলিশ ট্রাফিক সপ্তাহের প্রথম দিনে জেলায় মোট ২৬৩টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মোট ৪১টি যানবাহন আটক করা হয়।

Comments

comments

Top