ক্যান্সার আক্রান্ত প্রীতিলতার নাতনী অর্থের অভাবে চিকিৎসা প্রায় বন্ধ।নীরব সরকার

PicsArt_05-10-11.12.05.png

জাহাংগীর আলম শুভ:
ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদা নামে চট্টগ্রামের যে মেয়েটি আত্মহুতি দিয়ে সারাবিশ্বকে অবাক করে হয়েছিল ইতিহাসের অংশ। ঠিক তেমনি প্রীতিলতার বংশধর তাঁর নাতনী অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষিকা শিপ্রাশী ওয়াদ্দেদা ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে ভারতের সরোজ গুপ্ত ক্যান্সার হাসপাতালে অর্থাভাবে মৃত্যুর জন্য প্রস্তুুতি নিচ্ছে।সেখানকার ডাক্তাররা তাঁকে সুস্হ করতে সর্বমোট প্রায় ৩০-৩৫ লাখ টাকা ব্যয় হবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন।এমনিতেই সর্বশান্ত হয়ে এখন চিকিৎসা ব্যয় মিটাতে না পেরে ধরনা দিচ্ছেন সমাজের উচুতলার মানুষের দ্বার প্রান্তে।
তবু বেঁচে উঠুক আমার মা। সাংবাদিক পুএের আর কি বা করার আছে।
প্রথম আলো,কালেরকন্ঠ,বাংলাদেশ প্রতিদিন,চ্যানেল ২৪সহ অনান্য গনমাধ্যমে বিষয়টি তুলে ধরা হয়।এমন সংবাদে সাড়া মেলেনি সরকারের পক্ষথেকে। এগিয়ে আসেনি রাজনৈতিক,শিল্পপতি,দানবীর,সামাজিক সংগঠন। ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রীতিলতার সম্মান দেখাতে এলেন, অন্যদিকে অসম্মানে,অর্থাভাবে তাঁর নাতনী সে দেশেই মরতে বসেছেন তীলে তীলে।

প্রীতিলতা বংশধরের সন্ধান বের করলেন সাংবাদিকরা। অবাক হলাম,এতবড় সংবাদে ওয়াদ্দেদা ফাউন্ডেশনে কেউ স্মৃতিস্তম্ভ,জমি উদ্ধার নানা পরিকল্পনায় ব্যস্ত। একজন এসে দেখে যায়নি।খোঁজ নিয়ে বা এগিয়ে এসে একবার উকি দিয়ে দেখলো না। তারা মনে হয় এমন সংবাদে খুশি নয়। এমন স্বার্থপর মানুষ গুলোকে সামনে পেলে শিক্ষা দিতে পারলে মনের ঝাল মিটতো। এমন ইচ্ছা আন্দরকিল্লা এলাকার পুস্তক ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেনের।
এই জাতি কি এতটাই অকৃতজ্ঞ ? সহসা লজ্জা জনক ভাবে ইতিহাসের অংশ হওয়া কি সময়ের ব্যাপার? প্রীতি লতার বংশধর চট্টগ্রামের শিপ্রাশীর অর্থাভাবে ও বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর প্রতিক্ষা সেই ইংগিত দিচ্ছে। মিডিয়ার কল্যাণে জানতে পেরে বেশ কয়েকজন সত্যতা নিশ্চিত হতে প্রীতিলতা ফাউন্ডেশনের সাথে যোগাযোগ করলে তারা কৌশলে বুঝিয়ে দিয়েছে এটা সত্য নয়,আবার উদারতা স্বরুপ মানবিক দিক বিবেচনায় সহযোগিতার কথা বলেছে তারা। সত্যমিথ্যা যাচাই না করে এমন মন্তব্য কিভাবে করলেন? জানতে চাওয়া হলে প্রীতিলতা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি পংকজ চক্রবতীর কাছে। তিনি স্বীকার করলেন এমন কথা বলার বিষয়টি।,কারন তিনি নাকি নিশ্চিত হতে পারেননি। না গিয়ে কিভাবে নিশ্চিত হলেন তিনি।তিনি কি ঘরে বসে তথ্য বের করছেন?

প্রশ্ন:- ্আপনারা বংশ যাচাই করতে গিয়ে যদি প্রকৃত বংশধর অর্থাভাবে,বিনা চিকিৎসায় মারা যান, এর দায় কার ? তিনি বলেন:-আপনাদের ধারনা আমরা ব্যবসা করছি? সরকার কি কোন সাহায্য করছে?আমরা মানুষের কাছ থেকে অনুদান নিয়ে প্রীতিলতার স্মৃতি রক্ষা করছি। এমন কি,তিনি নিজে নাকি জায়গা বিক্রি করে এই সামাজিক কাজ করছেন। প্রশ্ন হলো শিপ্রাশীর সহযোগিতা কি সামাজিক কাজে পরেনা? মানুষের কাছ থেকে অনুদানের হিসেব কি সাধারন মানুষ জানে? নাকি মৃত্যু পথ যাএীর জীবনের চাইতে প্রীতির সম্পওি উদ্বারের জন্য এসপির সাথে বৈঠক জরুরী।
প্রীতিলতার স্বরনসভায় সংকৃতমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরের সামনে এড:রানা দাশ গুপ্ত প্রীতিলতার একক বংশধর দাবী করে বক্তব্য দেওয়া তুলে ধরে তিনি কোন দিকে ইংগিত করলেন?

এ বিষয়ে অসুস্থ শিপ্রাশীর সন্তান সাংবাদিক শুভ্রাশীষ দাশগুপ্ত রনি বলেন:-আমার মা মুক্তি যোদ্ধা সেটিই আমাদের কখনো প্রকাশ করতে দেননি।মায়ের আর্দেশ ছিলো,তিনি সাধারন জীবন যাপন করতে চান। এ সব কথা হয়তো কখনো বলার প্রয়োজন হতো না। কোনদিন মুখ দিয়ে বের করিনি। সাংবাদিকরা কিভাবে জেনে ফেলেন।।আমার নামের পরিচয়ের দরকার নেই,আপনারা যে কোন ভাবে আমার মাকে বাঁচাতে সহায়তায় এগিয়ে আসুন। আমার মা প্রকৃত বংশধর কিনা তা সাংবাদিকদের কল্যানে বিশ্ব জানে,অডিটোরিয়ামে বক্তব্যে আমার মা পরিচিতি পায়নি। গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর রানা দাশ গুপ্ত কোন প্রতিবাদ করেছেন কিনা? রনি বলেন:- দাবী করলে তাহলে অবশ্যই প্রতিবাদ জানাতেন। তিনি একমাএ বংশধর,রানাদাশ গুপ্ত এমন কিছু মনে হয় বলেননি। আমি জানি আমি কে।,আমি সকলের সাহায্য মায়ের চিকিৎসা করাতে চাই।মায়ের শারীরিক অবস্থা মোটেই ভাল নয়।তিনি সাংবাদিকদের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি প্রধান মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণে সবার সহযোগিতা চান।

চট্টগ্রামে দায়িত্ব প্রাপ্ত আওয়ামীলীগে সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীমের দৃস্টি আকর্ষণ করে বিষয়টি তার নজরে আনা হলে, তিনি মর্মাহত হন। । খুলনার নির্বাচনে সাংগঠনিক কাজে সেখানে অবস্থান করছেন বলে জানিয়ে, বিষয়টি দ্রুত চট্টগ্রামের সিনিয়র লিডার ইন্জিনিয়ার মোশারফ হোসেনকে জানাতে অনুরোধ করেন।তিনি সর্বাত্মক সহযোগিতা করবেন বলে জানান।

এ বিষয়ে কথা বলতে সংস্কৃত মন্ত্রী জনাব আসাদুজ্জামান নূরের মুঠো ফোনে বার বার ফোন এবং এসএমএস পাঠিয়ে যোগাযোগের চেস্টা করা হয়, সাড়া মিলেনি।বক্তব্য নেওয়ার চেষ্টায় ফোন করা হলে মুঠোফোন বন্ধ থাকায় রানাদাশ গুপ্তের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

অর্থাভাবে বিনাচিকিৎসায় মৃত্যু হলে দায়ভার আওয়ামী লীগের ঘারে তুলে দেওয়ার ষড়ষন্ত্র কিনা এমন প্রশ্ন চট্টগ্রাম আওয়ামী ঘরানার অনেক নেতার। বিশ্বদরবারে বাঙালী জাতিকে হেয় করার পরিকল্পনার কথা একেবারেই ফেলে দিতে নারাজ চট্রলাবাসী। শিপ্রাশী ওয়াদ্দেদাকে সাহায্যে এগিয়ে আসতে চাইলে যোগাযোগ করুন:-
শুভ্রাশীষ দাশগুপ্ত (রনি)সাবেক ব্যুরো চিফ,মোহনা টিভি চট্টগ্রাম। ইস্টার্ন ব্যাংক,( সন্চয়ী হিসাব নং ০০২১৪৩০০ ৫৩০০০) বিকাশ ০১৭৩১-৩৩১৪৪৫

Comments

comments

Top