ছুরিকাঘাতে প্রেমিকা খুন

kishor.jpg

বিদ্যালয় ছাত্রী চিকিৎসাধীন অবস্থায়

রিকশায় ওঠতে বাধা দেয়ায় প্রেমিকের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হয়েছেন একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন শাখার শেষ বর্ষের এক ছাত্রী। একই বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত বিবিএর শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফেরার পথে প্রেমিকার মুখমণ্ডলসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছুরিকাঘাত করে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয়রা আহতকে উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছেন।

শনিবার দুপুরে কিশোরগঞ্জের শহরের খড়মপট্টি এলাকায় ম্যাপল ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

আহত ছাত্রী (২১) শহরের হারুয়া এলাকার বাসিন্দা আর অভিযুক্ত প্রেমিক ইমরান (২১) নগুয়া এলাকার রতন মিয়ার ছেলে।

পুলিশ জানায়, একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এলএলবি (অনার্স) শেষ বর্ষের ছাত্রী ও শহরের হারুয়া এলাকার বাসিন্দা মেয়েটির সঙ্গে একই বিশ্ববিদ্যালয়ে বিবিএ শেষ বর্ষের ছাত্র নগুয়া এলাকার রতন মিয়ার ছেলে ইমরানের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সম্প্রতি তাদের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হলে ইমরান তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়। শনিবার দুপুর সাড়ে ১২দিকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রিকশায় বাসায় পথে খরমপট্টি এলাকায় আসার পর ইমরান জোর করে মেয়েটির রিকশায় ওঠে পড়ে। এ সময় বাধা দিলে ইমরান তার মুখ ও পিঠের বিভিন্ন স্থানে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। আশপাশের লোকজন মেয়েটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।

আহত ছাত্রীর পারিবারিক সূত্র জানায়, বাসায় ফেরার সময় খড়মপট্টি এলাকায় ম্যাপল ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের সামনে ইমরান জোর করে ওই ছাত্রীর রিকশায় ওঠে পড়ে। বাধা দেয়ায় তাকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করা হয়। এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তারা।

কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি আবুশামা মো. ইকবাল হায়াত জানান, ঘটনার পর থেকে ইমরানকে ধরতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চলছে। এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে যান বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ফারজানা খানম জানান, বিশ্ববিদ্যালয় আইনে অভিযুক্ত ইমরানের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Comments

comments

Top