ফেনী ছাগলনাইয়া ঘোপালে সন্ত্রাসী ফয়েজ।জিম্মি গ্রামবাসী।

CollageMaker_20180307_173908558_1.jpg

ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলার ১০নং ঘোপাল ইউনিয়নের লাংগলমোড়া গ্রামের মৃত মজল হকের ছেলে ফয়েজ আহম্মদ (৩৭)।তার হাতে জিম্মি ঘোপাল ইউনিয়নের সাধারন মানুষ।

সরেজমিনে অনুসন্ধান ও এলাকাবাসীর বর্ণনায় জানা যায়
ফয়েজ গ্রুপের ফয়েজের হাতে জিম্মি হওয়ার চালচিএ।

তথ্যমতে গত ২০১৬ সালের ৬ই ডিসেম্বর বিদেশী পিস্তল গুলি ও বন্দুকের গুলি সহ বাড়ী থেকে গ্রেপ্তার হয় সন্ত্রাসী ফয়েজ।মামলা নং জি,আর- ২৭৯/১৬, ছাগল নাইয়া থানা। ফয়েজ জেল থেকে জামিনে বের হয়ে কিছুদিন চুপ থাকার পর আবার শুরু করে মাদক ব্যবসা সহ সন্ত্রাসী কর্মকান্ড,তার সিন্ডিকেটের সদস্য তানভীর, দিদার, জিহান,ফারুক গং। তাদের ইয়াবা ব্যবসায় প্রতিবাদ করায় ২০১৭ সালের ২০নভেম্বর বেলাল,জাবেদ,রিদয় কে কুপিয়ে জখম করে এবং ২০১৮র সেপ্টেম্বর লাংগলমোড়া গ্রামে ক্রিকেট খেলার স্টেইজ ভাংচুর করে খেলা পন্ড করে দেয়।

২০১৮ সালের ২৬ শে ফেব্রুয়ারী দুর্গাপুর রাস্তার মাথা থেকে সবুজ নামে এক কলেজ ছাত্রকে অপহরন করে কুপিয়ে জখম করে পরবর্তিতে পুলিশ সবুজকে উদ্ধার করে,
এখন থেকে তিন বছর আগেও ফয়েজের পরিবারের বরন পোষণ চলতো তার দিনমজুর বাবার আয়ে কিন্তু বর্তমানে ফয়েজ কোটি টাকার মালিক ইয়াবা ব্যবসার কল্যাণে, বারইয়ার হাট পৌরসভায় ৫০ লক্ষ টাকার জমি এবং গ্রামে তার চাচাত ভাই থেকে ৮ লক্ষ টাকার জমি ক্রয় করে, হঠাৎ এত টাকার মালিক বনে যাওয়ায় জনমনে প্রশ্ন জাগে ইয়াবা ব্যবসায় এত লাভ?
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন গ্রামবাসী জানান, মাস্টার পাড়া এলাকার ইয়াবা ব্যবসায়ী জনির শেল্টার নিয়ে ইয়াবা ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী বনে যায় ফয়েজ। ফয়েজের বাবা দৈনিক কামলা খাটত আর ফিতরা ,জাকাতের টাকা নিয়ে সংসার চালাতো, কিন্তু তার অষ্টম শ্রেণী পড়ুয়া ছেলে রাতারাতি অপকর্ম করে কোটিপতি বনে যায়,
এলাকাবাসীর দাবী তার এসকল অপকর্মের তদন্ত পুর্বক আইনের আওতায় নিয়ে যুবসমাজকে মরননেশা ইয়াবার হাত থেকে রক্ষা করার অনুরুধ জানান। এই ব্যাপারে জানতে ফয়েজের মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার ফোন বন্দ পাওয়া যায়।

Comments

comments

Top