সাক্ষাতকার :: সুমন পেশায় আর্কিটেক্ট। গান ও ভ্রমন যার প্রিয়।

1501879854955.jpg

নাম জিয়াউর রহমান সুমন।পেশায় আর্কিটেক্ট।
চট্টগ্রামের পাহাড়তলী মাষ্টার লেইন এলাকায় তাঁর শৈশব কৈশোর কাটে।বাবা রেলওয়েতে কর্মরত ছিলেন বিধায় এই এলাকা তাঁর বেড়ে উঠার সূতিকাগার।পাহাড়তলী রেলওয়ে স্কুল থেকে এসএসসি পাস।তার পর হাটি হাটি হাটি পা পা করে আজকের চট্টগ্রামসহ দেশেবিদেশে সুনাম কুড়িয়েছেন,পেয়েছেন কাজের স্বীকৃতি,পেয়েছেন সম্মাননা স্বারক। পেয়েছেন দৈনিক সংবাদ মোহনা কতৃক সম্মাননা।
পাগলামো ভাবটা এখনো বিদ্যমান। একটু সুযোগ পেলেই গিটার হাতে গেয়ে উঠেন গুনগুন করে নানা রকমের গান।ঘুরেছেন ২৪টি দেশে।গান পাগল আর ভ্রমন পিপাসু
এই আর্কিটেক্ট নিজেকে এবং দেশকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরার স্বপ্ন দেখে। বৌ ভারতে ডাক্তারি পেশায় নিয়োজিত।তাঁর সাথে খোলামেলা কথা হয় আমাদের নগর
পরিকল্পনা নিয়ে। কেন তাদের মত সুনামধন্য স্হাপত্য শিল্পীরা থাকতে নগর আজো দৃষ্টিনন্দন হয়নি। কোথায় আমাদের ব্যর্থতা? এই ব্যাপারে সাক্ষাতকার দিয়েছেন টাইমস বিডি নিউজ.কমের কাছে।
প্রশ্ন: আপনি কত সালে এই পেশায় আসেন?
উওর: আমি ২০০৭ সাল থেকে এই পেশাতে আসি,
বলতে হয় ইচ্ছার বিরুদ্ধে আসা।তবে অন্য পেশায় যাইনি বলে দু:খ নেই।

প্রশ্ন::এত পেশা থাকতে এই পেশায় কেন আসা?
উ: আসলে কেউ তো এই পেশায় আসতো। কেউ এই পেশায় আসলে আমি ও পারি।আর একটা পরিবর্তন মনে হয় হচ্ছে দেশে,এই পরিবর্তনটা দরকার ছিল।ছেলে মেয়েরা এখন এই পেশায় আসতে আগ্রহ দেখাচ্ছে।

প্রশ্ন:: আপনাদের মত স্হাপত্যশিল্পীরা থাকার পরেও নগরীর সৌন্দর্যবর্ধনে আপনাদের তেমন কোন জোড়ালো ভূমিকা নেই কেন?
উ:: এই দেশে নগর উন্নয়নে আমাদের ভূমিকা রাখার মত পরিবেশ কোথায়? আমাদের ডাকেই বা কে?

প্রশ্ন:; নগরীর সৌন্দর্য রক্ষা নগর উন্নয়নে কোথায় বাধা বলে আপনার মনে হয়?
উ:: এখানে প্রধান সমস্যা হলো ভবিষ্যৎ চিন্তাকরে কোন পরিকল্পনা করা হচ্ছেনা। যে যারমত করে যাচ্ছে।
সরকারী অর্থ অপচয় হচ্ছে। ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার রুপরেখা তৈরী করে এগিয়ে যেতে হবে।

প্রশ্ন:: ভবিষ্যৎ রুপরেখা করলেই কি নগর ও নাগরিক
শ্রী বৃদ্বি পাবে?
উ:: না,রুপরেখা করলেই কোন ফল পাওয়ার আশা করা যাবেনা।
প্রশ্ন ::এর কারন কি?
উওর:: আগে নগর পিতাকে বুঝতে হবে নাগরিকরা কি চায়? প্রকৃত মানুষকে এবং বিভিন্ন স্হাপত্য বিশেষজ্ঞদের
সম্বন্ধিত ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা নির্ধারন। এতে খতি কি? লাভ কি? বিভিন্ন দিক ভেবে নগর ও নাগরিক সৌন্দর্য রক্ষা করতে হবে।

প্রশ্ন::আর্কিটেক্ট না হলে কি হতেন?
উ:: অবশ্যই গানের শিল্পী হতাম।
প্র:: এই পেশায় এখনো তেমন কোন ছাএছাএী লেখা পড়ার ইচ্ছা জন্মায় না কেন?
উ:: আমার মনে হয় এখন তা বলা যাবেনা।এখন তরুন প্রজন্ম এগিয়ে আসছে।
প্র:: দেশের বাইরে ঘুরে আপনি কি আপনার পেশার প্রতি মূল্যায়ন বা শিখার জন্য যান?
উ: দুটোই। ঘুরতে ভালবাসি তাই। অন্যরা কিভাবে তাদের ক্ষেত্রটা সৌন্দর্যময়করে তুলে তা দেখার জন্য যাই।

প্রশ্ন:: তরুন প্রজন্ম কে আপনি কোন বাণী দিতে চান?
উ:: নবীনরা তোমরা আরো বেশী করে এই পেশায় আস। তোমাদের মাঝেও হয়তো কোন ভ্যানগার্ড লুকিয়ে আছে।
টাইমস বিডি নিউজ.কমের পক্ষথেকে আপনাকে শুভেচ্ছা।

Comments

comments

Top