নটি আমেরিকার কাছে স্পন্সর চেয়ে আবেদন করেছিলেন ফুয়াদ

pritom-646x330-1.jpg

আমেরিকার অন্যতম বড় পর্নো সাইট নটি আমেরিকার কাছে স্পন্সর চেয়ে আবেদন করেন ফুয়াদ বিন সুলতান। পর্নো মুভি বানানোর জন্য করা এ আবেদনটি প্রক্রিয়াধীন রাখে নটি আমেরিকা কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া শতাধিক মেয়ের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেন ফুয়াদ। এই মেয়েদের অনেককে পরবর্তী সময়ে ব্ল্যাকমেইলের মাধ্যমে অসামাজিক কার্যকলাপে বাধ্য করেন তিনি। তবে নটি আমেরিকার জন্য মুভি বানানোর আগেই র‌্যাবের জালে ধরা পড়ে যান ফুয়াদ। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে এসব তথ্য পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

র‌্যাবের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, নটি আমেরিকা পর্নো সাইটের কাছে বাংলাদেশি কালেকশন তেমন একটা নেই। তাই তারাও এ দেশে স্পন্সর করতে রাজি হন। সরকারি তিতুমীর কলেজ থেকে ইংরেজিতে অনার্স শেষ করেন ফুয়াদ। ইংরেজি ভালো জানার কারণে আন্তর্জাতিক চক্রের সঙ্গে সহজেই যোগাযোগ করতে পারতেন তিনি।

সূত্র জানায়, তার কাছ থেকে ২৫ জন ছেলের মোবাইল নম্বর উদ্ধার করা হয়েছে। ফুয়াদকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর র‌্যাবের ধারণা হয়েছে, এই ছেলেদের বিকৃত যৌনাচারে ভাড়ায় খাটাতেন ফুয়াদ। তবে বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত তদন্ত করে দেখছে র‌্যাব। এ ছাড়া ফুয়াদের সঙ্গে গ্রুপ সেক্সে নিয়মিত থাকতেন তার এক ঘনিষ্ঠ বন্ধু। নিজেদের বাড়ির দুটি ফ্ল্যাটে এসব অপকর্ম চালিয়ে আসছিলেন ফুয়াদ। ওই দুটি ফ্ল্যাটের একটিতে তার স্ত্রী থাকতেন। এমন সব অপকর্মের কথা তার স্ত্রীও জানতেন বলে মনে করছে র‌্যাব। এ গ্রুপে আরও কিছু সহযোগী রয়েছে ফুয়াদের। গ্রেপ্তারের আগে তাদের নাম জানাতে চায়নি র‌্যাব।

র‌্যাব জানায়, ফুয়াদ নিজেকে পর্নোশিল্পী দাবি করেন। তাকে ধরে র‌্যাব কার্যালয়ে আনার পর কর্মকর্তাদের উল্টো ধমকান তিনি। এ সময় ফুয়াদ বলতে থাকেন, আমি একজন শিল্পী। আমাকে ধরে এনেছেন কেন? কোনো শিল্পীকে আপনারা এভাবে ধরে আনতে পারেন না। আমাকে ডাকলেই আমি চলে আসতাম।

সংশ্লিষ্ট সূত্র আরও জানায়, ফুয়াদ তার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক হওয়া শতাধিক তরুণীর ছবিসহ প্রোফাইল তৈরি করে তা ইন্টারনেটে ছেড়ে দেন। অর্থের বিনিময়ে ফুয়াদের এই সাইটে প্রবেশ করে যে কোনো মেয়েকে পছন্দ করতে পারতেন তার ক্লায়েন্টরা। একই সঙ্গে ফুয়াদ এসব তরুণীকে যৌন শিক্ষা দিতেন।

সূত্র জানায়, পর্নো মুভি তৈরিতে বিভিন্ন কোড নাম ব্যবহার করতেন ফুয়াদ। তার কাছ থেকে এমএমএফ, এফএফএমসহ বিভিন্ন কোড নাম উদ্ধার করেছে র‌্যাব।
এ বিষয়ে র‌্যাব ১-এর অধিনায়ক সারওয়ার বিন কাশেম টাইম্‌স বিডি নিউজ কে বলেন, ফুয়াদের আরও সহযোগীকে ধরতে কাজ করছে র‌্যাব।
উল্লেখ্য,
গত মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর উত্তরা এলাকা থেকে ফুয়াদকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

Comments

comments

Top