চট্টগ্রামের বায়জীদ থানা এলাকার পরিবর্তনের কারন কি?

FB_IMG_1501532710984.jpg

চাঁদাবাজী করতে গিয়ে গ্রেফতার -৩ চাঁদাবাজ।
————————————-
জাহাংগীর আলম শুভ::এক সময়ের অপরাধের সর্গরাজ্য হিসেবে পরিচিত বায়জীদ থানা এলাকায় একের পর এক
অভিযানে গ্রেফতার হতে থাকে একসময়ের বায়জীদ নিয়ন্ত্রণকারী অপরাধীরা। যেখানে চাঁদা না দিয়ে কোন বাড়ীঘর তৈরীকরা যেত না,সেখানে আজ তৈরী হচ্ছে অট্টালিকা। কিন্তুু কেন? কোন আলাদীনের যাদুর স্পর্শে পরিবর্তন হতে থাকে ক্রাইম জোন খ্যাত বায়জীদ থানা এলাকা?

না,কোন যাদু বা তন্তু মন্ত নয়। শুধু মাএ আন্তরিকতা কর্তব্যপরায়নতা পাল্টে দিলো বায়জীদ থানা এলাকা। তাই একে একে বেরিয়ে আসে ক্লুলেস হত্যা,চুরি যাওয়াপুলিশের পিস্তল,মাদক ব্যবসায়ীদের সুপথে আসা।চুরি যাওয়া শিশু শরীফ সহ, অবৈধ অস্র,ঔ এলাকার তোলাবাজ ছিনতাইকারী, একে একে ঢুকতে থাকে চৌদ্দশিকে। বায়জীদ থানা এলাকার জনগনের কাছে জনপ্রিয় এবং টিনএজ ছেলে মেয়ের বর্তমান আইডল। বায়জীদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো:মহসিন।

অদ্যরাত ১২টার দিকে বায়জীদ থানা এলাকার আমিনকলোনীতে সদ্য গজিয়ে উঠা একদল চাঁদাবাজ, চাঁদারদাবীতে মারধর করে আমিন কলোনীর ব্যবসায়ীদের। দ্রত এই সংবাদ থানায় পৌছা মাএ দেরী করেননি ঘটনাস্হলে ছুটে যেতে। সাথে ছুটলেন কর্তব্যরত অফিসার
গিয়েই ৩জনকে হাতে নাতে গ্রেফতার করে ওসি মহসিন।

কোনদলের তদবীরবাজ তার কাছে ঘেষার সুযোগ নেই। কোন দালাল থানায় আসা নিষেধ। তাই তিনি নির্বাচিতহয়েছেন সিএমপির শ্রেষ্ঠ পুলিশ অফিসার হিসেবে। জনগনের দাবী,ওসি মহসিনের মত এই অফিসারকে যাতে সহজে বায়জীদ থানা থেকে বদলী করা না হয়।

Comments

comments

Top